বিসিএস গণিত প্রস্তুতি নিয়ে যারা টেনশনে আছেন তাদের জন্য কিছু সারমর্ম ।

প্রস্তুতি

Total Views: 540

By: Khairul Alam.

---------------

অংক = পানি। এটা শুধু পড়ার বিষয় নয় বরং শেখার বিষয় এবং মজা করে খেলার বিষয়।

 

#আজকের অলোচনার বিষয়:

#বিসিএস গণিত ও মানসিক দক্ষতা অংশ ।

 

#কিভাবে কম সময়ে বেশি ভালো করা যায়।

 

#গণিত: নম্বর: 15

 

#পাটিগণিত:3 বীজগণিত: 9 এবং জ্যামিতি: 3

 

#কিভাবে কোন টপিক্স থেকে শুরু করবেন?

 

#শুরুতেই বীজগণিত: কারণ এখানে সময় লাগবে কম, অংক কম. পেচানো. কম, কিন্তু নম্বর বেশি :

 

#প্রথমেই : সূচক ও লগারিদম:

(কারণ এ অধ্যায় দুটি থেকে 2/3 টি প্রশ্ন আসবে। এগুলো শেখার জন্য আগে থেকে কোন কিছু জানতে হবে না,,,, আবার খুব কম সময়ে অধ্যায় দুটি শেষ করা সম্ভব) (শুধু বিগত সালের প্রশ্ন সমাধান করে কমন পাওয়ার চিন্তায় না থেকে নিয়মগুলো শিখতে হবে)

 

#মান নির্ণয়.. ও উৎপাদক:

সবাই জানেন কিভাবে করতে হবে। কারণ এগুলো অনেক আগে থেকেই সবাই করেন। তবে খুব কম সময় নিয়ে কিভাবে করা যায় সেভাবে করার চেষ্টা করবেন।

 

#বিন্যাস - সমাবেশ, সম্ভাব্যতা ও অসমতা:

বিজ্ঞানের ছাত্র-ছাত্রী ব্যতীত এগুলো নিয়ে 99% ছাত্র-ছাত্রীদের ভয় থাকলেও যেহেতু খুব সহজ প্রশ্ন হবে...এবং খুব সহজে শেখা যাবে (কারো সাহায্য না নিয়ে নিজে নিজেই বাজারে প্রচলিত বই পড়ে অধ্যায়গুলো ভালোভাবে শেখা খুব কঠিন হবে, কারণ সবার কাছে একেবারে নতুন বিষয়.... তাই এই বিষয়টাতে একটু হেল্প নিতে পারলে ভালো হয়। আমি একটা পিডিএফ শেয়ার করেছিলাম। সেখানে থেকেও আইডিয়া পাবেন....আমার টাইমলাইনে বিন্যাস সমাবেশের ভিডিও আছে। ব্যাসিক কনসেপ্ট ক্লিয়ার করার জন্য দেখে নিতে পারেন।

 

#পরিসংখ্যান:

এই অধ্যায়ের অংক আমার বিশ্বাবিদ্যালয় লেভেলে সবাই শিখেছি। কিন্তু এমসিকিউ প্রশ্নে বড় বড় ডাটা দিয়ে অংক আসবে না। তাই শুধু কিছু টার্ম যেমন: (Central Tendency,, Frequency,, Mean (গড়).. Median(মধ্যক).. Mood (প্রচুরক) কি? কিভাবে বের করতে হয়? এগুলো জানবেন আর পাটিগণিতের গড় অধ্যায়টি খুব ভালোভাবে প্রাকটিস করবেন, কারণ গড় আর পরিস্ংখ্যান প্রায় একই। এখানে থেকে, 1টা প্রশ্ন আসতে পারে ।

 

#সমীকরণ - সহ সমীকরণ:

এই অধ্যায়ে বিশেষ করে ভগ্নাংশের সমীকরণ গুলো দেখবেন..(অপশন থেকে দ্রুত উত্তর বের করার নিয়মটিও শিখতে হবে) পাশাপাশি সমীকরণ সাজিয়ে (ধরে করার) যে অংকগুলো আছে তা কিভাবে দ্রুত করা যায় তা নিয়ে কাজ করবেন। 2টা প্রশ্ন পাবেন এখান থেকে । লিখিত পরীক্ষার জন্যও খুব গুরুত্বপূর্ণ ।

 

#এছাড়াও যে অধ্যায়গুলোতে সবাই স্বাভাবিকভাবে পারেন.তা নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই যেমন:( সেট.. উৎপাদক) এগুলো করার সময় একটা বিষয় মনে রাখবেন শুধু নির্দিষ্ট প্রশ্ন (বিগত সালের ) সমাধান না করে অংকটি কিভাবে সমাধান হচ্ছে (নিয়ম) তার প্রতি জোর দিবেন।

 

#বীজগণিতের পর জ্যামিতি আগে পড়বেন। যে কোন বই থেকে শুধু প্রশ্ন সমাধান না করে বিভিন্ন নিয়মের আর অনুসিদ্ধান্তগুলো চিত্র একে এঁকে শিখতে হবে। না হলে দ্রুত ভুলে যাবেন। এই অংশে সবথেকে কম সময়ে সবথেকে ভালো নম্বর পাওয়া সম্ভব। কোণ+ত্রিভুজ+চতুর্ভূজ+বৃত্ত কয়েকদিন পড়লেই শেষ হবে আশা করি।

 

 

#সবশেষে পাটিগণিত: কারণ নম্বর কম কিন্তু অনেক প্রশ্ন সমাধান করতে হবে।

#শুরুতেই বাস্তব সংখ্যা ও ল.সা.গু-গ.সা.গু পড়ে ফেলবেন এখান থেকে ১ নম্বর মাস্ট।

#এর পর শতকরা খুব ভালোভাবে বুঝে বুঝে শিখতে হবে তাহলে লাভ-ক্ষতি ও সুদকষাতেও উপকার পাবেন।

#অনুপাত-সমানুপাত.+ মিশ্রণ+অংশীদারী কারবার খুবই সহজ।

#তবে বিসিএস এ পাটিগণিত থেকে খুব কম প্রশ্ন আসলেও ব্যাংক সহ অন্য যে কোন পরীক্ষায় এই অংশটি থেকিই 70% প্রশ্ন আসে। তাই ভালোভালে শিখলে আখেড়ে আপনিই এগিয়ে থাকবেন। আর মানসিক দক্ষতার অনেক ছোট ছোট প্রশ্ন এখান থেকেই আসবে।

#লিখিত পরীক্ষার জন্যও পাটিগণিত খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু বিসিএস এর জন্য সময় না পেলে শুধু সিলেবাসের গুলো করবেন।

 

 

#মানসিক দক্ষতা: নম্বর: 15

 

(শুধু বুদ্ধিমান হলেই সব পারবেন তা যেমন সত্য নয়..তেমনি শুধু প্রাকটিস করলে আর পড়লেই এই অংশে ভালো করা যাবে তা ও না। বরং প্রাকটিস ও বুদ্ধির সমন্বয় করতে হবে)

 

#গত বিসিএস এ মানসিক দক্ষতা অংশের 15টির মধ্য 10টি প্রশ্ন এসেছে যা গণিত সম্পর্কিত:

এই অংশের জন্য সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল

 

#সংখ্যা নিয়ে খেলা।

 

যেমন: সংখ্যা দিয়ে শুণ্যস্থান পূরণ করা....চিত্রে যৌক্তিক সংখ্যা বসানো....(বিভিন্ন ভাবে আসতে পারে)

 

#পরামর্শ: 1 থেকে 25 এর নামতা ঠুটস্থ থাকতেই হবে... বিভিন্ন সংখ্যার বর্গ (20পর্যন্ত) ও ঘন (10 পর্যন্ত), বিভিন্ন ভগ্নাংশের দশমিক মান মুখস্থ রাখবেন... আর সবথেকে গুরুত্ব দিবেন... দ্রুত মুখে মুখে যোগ বিয়োগ করার ক্ষমতা কিভাবে বাড়ানো যায়, তার উপর। ধরেন একটি সিরিজ এসেছে

12,26,54,110 এখন আপনি যদি 110 উপরে লিখে 54 নিচে লিখে বিয়োগ করেন অথবা যোগ বিয়োগ করতেই অনেক সময় লাগান তাহলে পরীক্ষায় সময় পাওয়া যাবে না।

 

#ক্যালকুলেটর নিষিদ্ধ করায় কতৃপক্ষের উপর রাগান্নিত হন..তাহলে আপনাকে আর অংক করতে হবে না। অথচ কিছুদিন মনযোগ দিয়ে প্রাকটিস করতে থাকলে মুখে মুখে এই যোগ বিয়োগ গুলো করতে পারবেন। ( পরে আমি কিছু টেকনিক শেয়ার করবো, দ্রুত অংক পারার জন্য সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ হল এগুলো)

 

#চিত্র নিয়ে খেলা:

শুধু বিগত সালের প্রশ্ন না পড়ে বিভিন্ন মানসিক দক্ষতার বই+ ওয়েবসাইট ঘেটে খাতা কলমে নিজে নিজেই অনেক বেশি চিত্র খুব কম সময়ে প্রাকটিস করে ফেলুন।

 

(যারা বাজারে প্রচলিত বইয়ের দু চারটি বিগত সালের প্রশ্নে উপর নির্ভর করবেন... তাদের পড়া আর না পড়া সমান)

 

#সমস্যা সমাধান:

পাটি গণিতের বিভিন্ন ছোট ছোট অধ্যায়ের খুব সহজ সহজ কিছু অংক কিন্তু দ্রুত করতে গেলে ভুল হতে পারে... এমন অংকই আসবে.. এজন্য পাটি গণিতের

 

#দশমিক.+ভগ্নাংশ+শতকরা মান বের করা.+নৌকা-স্রোত+ নল চৌবাচ্চা+কাজ+গতিবেগের খুব সহজ সহজ অংক গুলো প্রাকটিস করে রাখতে হবে।

 

#সিদ্ধান্ত গ্রহন:

এটাতেও কিছু প্রাকটিস করার আছে,,, তবে তাংক্ষণিক মাথা খাটানোই আসল।

 

#ঘড়ি+পঞ্জিকা+বানর শামুক+রক্তের সম্পর্ক:

এ এগুলোতে 1 দিন সময় দিলেই সব শিখতে পারবেন। কিন্তু কোন আইডিয়া ই না থাকলে সব হ-য-ব-র-ল করে ভুল উত্তরটি সবথেকে কনফিডেন্টলি করে আসবেন আর মাইনাস মার্কিং এ ধরা খাবেন। (আমি কিছু নোট দিতে পারি.. ফুল ক্লিয়ার করার জন্য)

 

#মুখস্থ অংশ: বাংলা ও ইংরেজী বানান..শব্দের যথাযথ প্রয়োগ..এনালজি..এগুলোর জন্য আলাদাভাবে সময় না দিয়ে বাংলা ও ইংরেজী বিষয় পড়ার সময় মানসিক দক্ষতা অংশের বিষয়টি মাথায় রাখবেন)

 

#বিবিধ: এছাড়াও এমন কিছু প্রশ্ন আসবে যা কোন বই পড়ে শেখা যাবে না যেমন (রাস্তার পাশে খুঁটি.. আধুলি.,ছাগল+মুরগির পা...আরো কত কি যে আসতে পারে!!!! ) হঠাং করে নতুন কোন প্রশ্ন সামনে আসলে খুব সহজ হলেও অনেকেই ভুল করবেন,,,, তাই যেন একবার হলেও বিভিন্ন আইটেমের প্রশ্নগুলো দেখে যেতে পারেন.... এ ধরণের কিছু অস্বাভাবিক প্রশ্ন যা কোন অধ্যায়ের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় আমি মাঝে মাঝেই ব্যাখ্যা সহ শেয়ার করবো। মিস করবেন না।

 

 

#ভুলে যাবেন না যে, যে কোন পরীক্ষায় গণিতই সবথেকে সহজ.. আর বেশি নম্বর পাওয়ার অগ্রিম নিশ্চয়তা আছে শুধুমাত্র গণিতেই।

 

========= ধন্যবাদ সবাইকে।

 

#সাথে থাকুন।

আবেদনের শেষ তারিখঃ 2030-12-18

লোকেশনঃ বাংলাদেশ

Source: online