Bangladesh Bank AD: সুযোগ সুবিধা

প্রস্তুতি

Total Views: 697

বাংলাদেশে যে কয়টা Lucrative জব আছে, যেমন BCS, Dudok, BB (AD), পেট্রোবাংলা এর মধ্যে কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া নিসন্দেহে বাংলাদেশ ব্যাংক এর AD বেস্ট।বলতে পারেন কিছু জব পেতে হলে সাধনা করতে হয় তার মধ্যে এটা একটা বাংলাদেশ ব্যাংকের মতো এমন সুন্দর, নির্বিঘ্ন, চাপমুক্ত ও শান্তিপূর্ণ কর্মপরিবেশ ও তদবির ও লবিং ছাড়া নিয়োগলাভ ও ঠিক সময়ে দ্রুত পদোন্নতির ব্যবস্থা অন্য কোন সরকারি প্রতিষ্ঠানে নেই,তা নিসন্দেহে বলা যায়।
সুবিধা সমূহ:
একজন সহকারি পরিচালক প্রতিমাসে তার মূল বেতন ২৩১০০ + ৬০% বাড়ি ভাড়া+ ১,৫০০/- টাকা চিকিৎসা ভাতা+প্রতি কর্মদিবসে মধ্যাহ্ন ভোজ ভাতা ২০০/- টাকা, ইন্টারনেট বিল ভাতা বাবদ ১,০০০/- টাকা এবং মোবাইল বিল ভাতা বাবদ ৫০০/- টাকা পান। একজন AD এর মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ের সবকটিতে ১ম শ্রেণীর নম্বর পেলে মূল বেতনের সাথে আরো ৪টি বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট প্রতিটি ইনক্রিমেন্ট মূল বেতনের ৫%. এছাড়া কোন কোন ক্ষেত্রে অফিস টাইমের আগে সকালে ও অফিস টাইম শেষে সন্ধ্যার পর overtime করলে এ বাবদ অতিরিক্ত ভাতা প্রদান করা হয়। Overtime করা সকলের জন্য বাধ্যতামূলক নয়। বাংলাদেশ ব্যাংক এই একমাত্র যেখানে আপনার একাডেমিক রেজাল্ট এর মুল্যায়ন হয়।
বাংলাদেশ ব্যাংক এর চাকরির আরেকটা সুবিধা হচ্ছে আপনাকে যে ৬ মাসের একটা Foundation Training বা বুনিয়াদী প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে; এই প্রশিক্ষণে ৮০% নম্বর পেলে তার মূল বেতনের সাথে আরো একটি অতিরিক্ত ইনক্রিমেন্ট যোগ হয়। খেয়াল করে দেখুন শুধু মেধার মুল্যায়ন।
আবার আপনি যদি JAIBB & DAIBB ২ টা এক্সাম এ কৃতকার্য হন প্রতিটির জন্য তার মূল বেতনের সাথে আরো ০১টি করে ইনক্রিমেন্ট যোগ হয়। Foundation Training এ প্রতি ব্যাচে ৬০ জন করে প্রশিক্ষণ পান এবং তাদের থাকা, খাওয়ার ব্যবস্থা BBTA-তে করা হয়। প্রশিক্ষণকালে প্রত্যেক AD পকেট খরচ, বেতন ও ভাতা সব পাবে। ১ বছর শিক্ষানবিশকাল অতিক্রান্ত হলে সকলের চাকরি স্থায়ী হয় এবং সকলের মূল বেতনের সাথে অতিরিক্ত ০১টি বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট যোগ হয়।
বোনাস : একজন সহকারি পরিচালক ২ ঈদের প্রতিটিতে মূল বেতনের ১০০% হারে ঈদ বোনাস পান,এবং বাংলা নববর্ষের বোনাস পান।
ইনসেনটিভ_বোনাস : জুলাই মাস শেষে আগের অর্থবছরে কি পরিমাণ ব্যাংক লাভ করেছে তা বিবেচনায় মূল বেতনের ১০০% হারে কমবেশি ৫-৬টা Annual Profit Bonus (Incentive Bonus) পাবেন।
ঋণ_প্রাপ্তি : চাকরির মেয়াদ ০৩ বছর পূর্ণ হলে গৃহনির্মাণ বাবদ বার্ষিক ৫% হারে সুদে ৮০লাখ -১ কোটি ঋণ পাবেন এবং চাকরির মেয়াদ ০৫ বছর পূর্ণ হলে গাড়ি ক্রয় বাবদ আরো ২০-৪০ লাখ টাকা পাবেন।
ছুটি_সুবিধা : সকল কর্মকর্তা Casual Leave বাবদ বছরে ২০ দিন ছুটি পান। এছাড়া Ordinary Leave সুবিধা আছে। প্রতি ১১ কর্মদিবসের জন্য একজন কর্মকর্তা১ দিন Ordinary Leave জমা হয়। চাকরি জীবনে প্রতি ০৩ বছরান্তে একজন কর্মকর্তা Recreation Leave বাবদ ১৫ দিন ছুটি পান। ছুটির সময় সকল বেতন-ভাতা পান এবং মূল বেতনের ১৫০% হারে ভ্রমণ বাবদ ভাতা পান।
চিকিৎসা সুবিধা + সন্তান প্রসব সুবিধা:
বাংলাদেশ ব্যাংক এরএর সবচেয়ে আকর্ষনীয় সুবিধা হচ্ছে কোন কর্মকর্তা উচ্চরক্তচাপ ও ডায়াবেটিস ও অন্যান্য রোগে ভুগলে তার যাবতীয় খরচ ব্যাংক বহন করে।এবং ২ সন্তানের সিজারিয়ান খরচ বহন করে।
Cooperatives : বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য প্রায় প্রতিটি অফিসে Cooperatives সুবিধা আছে। Cooperatives-এর সদস্য হলে সেখান তেকে স্বল্প সুদে সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা ঋণ নেওয়া যায়। এছাড়া Cooperatives-এর শেয়ার কিনলে বছরান্তে প্রায় ৪০% হারে Dividend দেয় এবং এটা খুবই লাভজনক। যেমন কেউ বাংলাদেশ ব্যাংক, প্রদান কার্যালয়ের Cooperatives —এর সদস্য হলে এবং তার ৪০,০০০/- মূল্যের শেয়ার থাকলে তিনি বছরান্তে ১৬,০০০/- টাকা Dividend পাবেন।
Pension_Gratuity_GPF (General Provident Fund): অন্যান্য সরকারি চাকুরীর মতো বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা চাকুরী থেকে অবসর গ্রহণকালে পেনশন, গ্রাচুইটি এবং সাধারণ ভবিষ্য তহবিল খাতে অনেক টাকা পান।
পদোন্নতি_সুবিধা :এই সুবিধা আপনি বুঝবেন যেদিন থেকে চাকরি করবেন। বাংলাদেশ ব্যাংকে পদেন্নতির ক্ষেত্রে কোন তদবির, ঘুষ বা স্বজনপ্রীতির সুযোগ নেই। পদোন্নতি ব্যবস্থা পুরোপুরি স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ। একজন সহকারী পরিচালক ৩ থেকে সাড়ে ৩ বছরের মধ্যে Deputy Director পদে পদোন্নতি পান। এর ৪-৭ বছরের মাতায় Joint Director পদে পদোন্নতি পান। এর ৭-৮ বছরের মাথায় Deputy General Manager (DGM) পদে পদোন্নতি পান। চাকুরী জীবনের শুরু থেকে ২৩-২৭ বছরের মাথায় General Manager (GM) পদে পদোন্নতি পাওয়া যায়।
বিশেষ_সুবিধা : কোন সহকারি পরিচালক যদি বিসিএস যেকোন ক্যাডারে বা অন্য সরকারী চাকরি পান এবং সেখানে যোগদানে ইচ্ছুক থাকেন সেক্ষেত্রে তিনি বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ০১ বছর ছুটি নিতে পারবেন। ঐ কর্মকর্তা যদি তার নতুন কর্ম-প্রতিষ্ঠান এ চাকরি নিয়ে অসন্তুষ্টিতে থাকেন বা ভাল না লাগে তাহলে তিনি ০১ বছরের মধ্যে যেকোন সময় বাংলাদেশ ব্যাংকে পুনরায় যোগদান করতে পারবেন এবং এক্ষেত্রে তার জ্যেষ্ঠতার লংঘন হবে না এবং তার অন্যান্য সহকর্মীর মতো যথাসময়ে পদোন্নতি পাবেন। বাংলাদেশ ব্যাংক এ এরকম কর্মীর সংখ্যা অনেক যারা এডমিন সহ বিভিন্ন ক্যাডার এ জয়েন করে আবার BB তে ফেরত এসেছে।

আবেদনের শেষ তারিখঃ 2030-12-18

লোকেশনঃ বাংলাদেশ

Source: online